সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে নকল ডিম, জেনে রাখুন বিষাক্ত ডিম চিনে নেয়ার ১০টি লক্ষণ


নকল বা কৃত্রিম ডিমের কথা এখন সবাই জানেন। অনেকেই বিষয়টিকে গুজব বলে উড়িয়ে দিলেও এখন আর সেটা গুজবের পর্যায়ে নেই। কেননা খোদ বাংলাদেশেই নকল ডিম কেনার ও খাওয়ার অভিজ্ঞতা অনেকের হয়েছে। এবং আক্ষরিক অর্থেই চিন থেকে বিপুল পরিমাণ নকল ডিম ছড়িয়ে পড়ছে বাংলাদেশে-ভারত-মায়ানমার সহ আশেপাশের অনেক দেশেই।
মায়ানমারের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন এবং ইন্ডিপেন্ডেন্ট মর্নিং নিউজ এজেন্সি-সহ বেশ কয়েকটি বিদেশি সম্প্রতি জানিয়েছে যে, মায়ানমারের রাজধানী ইয়াঙ্গুনসহ ওই দেশের বিভিন্ন এলাকায় সীমান্তের চোরাপথে চিন থেকে কৃত্রিম ডিম পাচার হচ্ছে। চোরাপথে সেই ডিম ভারত-সহ আশপাশের অন্যান্য দেশেও সয়লাব হয়েছে নকল ডিমে। যা দেখতে একদম হাঁস-মুরগির মতো।
প্রসঙ্গত, ২০০৪ সাল থেকেই তৈরি হচ্ছে কৃত্রিম ডিম। যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত বিজ্ঞান সাময়িকী ‘দ্য ইন্টারনেট জার্নাল অফ টক্সোকোলজি’তে কৃত্রিম ডিম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেওয়া আছে।
তাতে অবশ্য একথাও বলা আছে যে, কৃত্রিম ডিমে কোনও খাদ্যগুন নেই। নেই কোনও প্রোটিন নেই। বরং তা মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। চীনে তৈরি হওয়া এসব কৃত্রিম বা নকল ডিম এক কথায় বিষাক্ত। কৃত্রিম ডিম তৈরিতে ব্যবহৃত রাসায়নিক উপাদান ক্যালসিয়াম কার্বনেট, স্টার্চ, রেসিন, জিলেটিন মানবদেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। দীর্ঘদিন এই ধরনের ডিম খেলে স্নায়ুতন্ত্র ও কিডনিতে সমস্যা হতে পারে। ক্যালসিয়াম কার্বাইড ফুসফুসের ক্যান্সারসহ জটিল রোগের কারণ।
কীভাবে চিনবেন নকল ডিম?
-কৃত্রিম ডিম অনেক বেশি ভঙ্গুর। এর খোসা অল্প চাপেই ভেঙে যায়।
-এই ডিম সিদ্ধ করলে কুসুম বর্ণহীন হয়ে যায়।
-ভাঙার পর আসল ডিমের মতো কুসুম এক জায়গায় না থেকে খানিকটা চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। অনেক সময় পুরো কুসুমটাই নষ্ট ডিমের মত ছড়ানো থাকে।
-কৃত্রিম ডিম আকারে আসল ডিমের তুলনায় সামান্য বড়
-এর খোলস খুব মসৃণ হয়। খোসায় প্রায়ই বিন্দু বিন্দু ফুটকি দাগ দেখা যায়।
-রান্না করার পর এই ডিমে অনেক সম্যেই বাজে গন্ধ হয়। কিংবা গন্ধ ছাড়া থাকে। আসল কুসুমের গন্ধ পাওয়া যায় না।
-নকল ডিমকে যদি আপনি সাবান বা অন্য কোন তীব্র গন্ধ যুক্ত বস্তুর সাথে রাখেন, ডিমের মাঝে সেই গন্ধ ঢুকে যায়। রান্নার পরেও ডিম থেকে সাবানের গন্ধই পেতে থাকবেন।
-নকল ডিমের আরেকটি উল্লেখ্য যোগ্য লক্ষণ হলো ডিম দিয়ে তৈরি খাবারে এটা ডিমের কাজ করে না। যেমন পুডিং বা কাবাবে ডিম দিলেন বাইনডার হিসাবে। কিন্তু রান্নার পর দেখবেন কাবাব ফেটে যাবে, পুডিং জমবে না।
-নকল ডিমের আকৃতি অন্য ডিমের তুলনায় তুলনামূলক লম্বাটে ধরণের হয়ে থাকে।
-নকল ডিমের কুসুমের চারপাশে রাসায়নিকের পর্দা থাকে বিধায় অক্ষত কুসুম পাওয়া গেলে সেই কুসুম কাঁচা কিংবা রান্না অবস্থাতে সহজে ভাঙতে চায় না।

একটি শিক্ষনীয় ঘটনা বলছি, চাইলে ১ মিনিট সময় ব্যায় করতে পারেন।


একটি শিক্ষনীয় ঘটনা বলছি, চাইলে ১ মিনিট সময় ব্যায় করতে পারেন।
_______________ ______________
২০১২ সালে লন্ডনের একটি মসজিদে এক মৃত ব্যাক্তির জানাজা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল।
জানাজায় অনেকের সাথে সেই মৃত্য ব্যাক্তিটির এক আত্মীয়ও এসেছিল। বয়স ঠিক ১৯/ ২০ হবে যুবক। কিন্তু ঐ আত্মীয় লোকটি জানাজা না আদায় করে কানে হেড ফোন দিয়ে গান শুনছিল। ঘটনাটি মসজিদের ইমাম সাহেবের চোখে পড়ল।সে ঐ যুবককে এটা করতে নিষেধ করল এবং বলল আল্লাহকে ভয় কর এবং যে মারা গেছে তার জন্য দোআ কর। কিন্তু যুবকটি সে লোকটি বলল এখনও তো আমি যুবক।
আর এখন তো আমার আনন্দ ফুর্তি করার সময়।আল্লাহর পথে চলার জন্য তো
বাকীটা জীবন এখনও পড়ে আছে। এমনবস্থায় ইমাম সাহেব ছেলেটিকে আর কিছু না বলে চলে গেলেন। এর বেশ কয়েকদিন পর সেই মসজিদে আরো একটি জানাজা নামাযের জন্য মৃত লাশ এলো। ইমাম সাহেব যখন লাশটির কাপড় সরিয়ে মুখ দেখতে গেল তখন তিনি বেশ অবাক হয়ে গেলেন। কেননা এই লাশটি হল সেই যুবক ব্যাক্তিটির যে কিনা কানে হেড ফোন দিয়ে তার সাথে কথা বলেছিল। মানুষের মৃত্যু এমন এক বিষয় যা কাউকে আগে থেকে বলে আসে না। ঘড়ির কাটা হয়তো ইচ্ছে করলে এদিক ওদিক করা যাবে কিন্তু আল্লাহর নির্ধারিত মৃত্যুর ফরমানা এক সেকেন্ডও এদিক ওদিকে হবে না। সত্য আল্লাহ সুবাহানাহু ওয়া তায়ালা , সত্য হযরত মুহাম্মদ (সঃ) সত্য এই নিছক দূনিয়ার পরীক্ষা ক্ষেত্র, সত্য জান্নাত ও জাহান্নাম।
মহান আল্লাহ আমাদের বুঝ দান করুন। আমরা যেন দূনিয়া থাকা কালীন তার
পথে চলতে পারি এবং ঈমানের সাথে মৃত্যুবরন করতে পারি সেই তৌফিক দান
করেন! ……সকলে বলি আমিন।

টাঙ্গাইলের সালমা খাতুনের বেতন ৩ কোটি ৪০ লাখ ৩৮ হাজার টাকা !


টাঙ্গাইলের এমপিওভুক্ত এক হাইস্কুলের সহকারি গ্রন্থাগারিকের বেতন সাড়ে তিন কোটি টাকা। অবিশ্বাস্য হলেও মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের ভুলে ঘটেছে এমন ঘটনা। সালমা খাতুন নামের এই গ্রন্থাগারিক টাঙ্গাইলের ভুয়াপুরের মাটিকাটা এম এল হাইস্কুলে চাকরি করেন। ওই গ্রন্থাগারিকের প্রকৃত বেতন ৮ হাজার টাকা। তার জানুয়ারি মাসের বেতন হিসেবে ৩ কোটি ৪০ লাখ ৩৮ হাজার টাকা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর।
চলতি মাসে অর্থ ছাড় করার শেষ পর্যায়ে বিষয়টি নজরে আসে অধিদপ্তরের। তবে এমপিও’র টাকা বরাদ্দে অসঙ্গতির ঘটনা এবারই প্রথম নয়। চলতি মাসে কমপক্ষে এমন আরো ৬টি ঘটনা ঘটেছে।
একটি চক্র পরে এ টাকা নিজেদের মধ্যে ভাগাভগি করে নেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। অবশ্য টাঙ্গাইলের ঘটনাটিকে দুর্ঘটনা বলছে অধিদপ্তর।
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক প্রফেসর এলিয়াস হোসেন বলেন, সার্ভার থেকে আমরা তথ্য নিয়ে দেখেছি ব্যাংক অ্যাকাউন্টের ঘরে সে অ্যাকাউন্ট নম্বর লিখেছে। আবার এরিয়ারে কত অ্যামাউন্ট হবে সেটার একটা কলাম ছিলো, সেখানেও ব্যাংক অ্যাকাউন্ট লিখে দিয়েছে। ‘যেহেতু ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর ছিলো ৩৪০৩৮৪৭৮ অর্থাৎ আট ডিজিট থাকার কারণে এটা কোটি টাকা হয়ে গেছে। মূলত অসাবধানতার কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে।’
এলিয়াস হোসেন আরো বলেন, ব্যাংক যখন আমাদের জানিয়েছে যে এত টাকা এরিয়ার আসল, আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যাংকে চিঠি দিয়ে বন্ধ করিয়েছি। এখন তদন্ত প্রক্রিয়া শেষের দিকে, আমরা এখন সার্ভারের রিপোর্টগুলোসহ একটা রিপোর্ট জমা দিব। এরপর টাকা ফেরত নেওয়ারও চিঠি প্রশাসন দিচ্ছে।
এ ঘটনার পর কম্পিউটার সফটওয়ারের বেশ কিছু জায়গায় পরিবর্তন আনা হয়েছে।


এবার BPL এ যেসব বিদেশী খেলোয়াড়দের খেলার সম্ভবনা আছে! (দেখুন তাদের তালিকা)


আসন্ন বিপিএল  সিজন ৪ এ যেসব খেলোয়াড়রা ফ্রি আছেন কেবল তাদেরকে নিয়েই নিলাম করার সুজগ আছে। এক নজরে দেখে নিন এবার BPL এ যেসব বিদেশি খেলোয়াড়দের খেলার সম্ভবনা আছে! (দেখুন তাদের তালিকা)
SRI LANKA:
Kumar Sangakkara
Tillakaratne Dilshan
Angelo Mathews
Thisara Perera
Dinesh Chandimal
Upul Tharanga
NEW ZEALAND:
Kane Williamson
Corey Anderson
Martin Guptill
Tim Southee
Trent Boult
Ross Taylor
PAKISTAN:
Shahid Afridi
Mohammad Amir
Mohammad Hafeez
Shoaib Malik
Umar Gul
WEST INDIES:
Chris Gayle
Carlos Brathwaite
Dwayne Bravo
Sunil Narine
Kieron Pollard
Andre Russell
Marlon Samuels
Lendl Simmons
Darren Sammy

কোন স্ত্রীর ওপর ফেরেশতারা সারারাত অভিশাপ দিতে থাকে?


আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, “যখন কোনো স্বামী তার স্ত্রীকে স্বীয় শয্যা গ্রহণ বা দৈহিক মিলনের জন্য আহবান জানায়, কিন্তু স্ত্রী তা অস্বীকার করায় স্বামী তার ওপর ক্রুদ্ধ হয়ে রাত কাটায়, তখন ফিরিশতাগণ সকাল পর্যন্ত ঐ স্ত্রীর ওপর অভিশাপ দিতে থাকে”। [সহীহ বুখারী; সহীহ মুসলিম; মিশকাত, হাদীস নং ৩২৪৬]
 অনেক মহিলাকেই দেখা যায় স্বামী-স্ত্রীতে একটু খুনসুটি হলেই স্বামীকে শাস্তি দেওয়ার মানসে তার সঙ্গে দৈহিক মেলামেশা বন্ধ করে বসে। এতে অনেক রকম ক্ষতি দেখা দেয়। পারিবারিক অশান্তির সৃষ্টি হয়। স্বামী দৈহিক তৃপ্তির জন্য অবৈধ পথও বেছে নেয়, অন্য স্ত্রী গ্রহণের চিন্তাও তাকে পেয়ে বসে। এভাবে বিষয়টি হিতে বিপরীত হয়ে দাঁড়াতে পারে।
সুতরাং স্ত্রীর কর্তব্য হবে স্বামী ডাকামাত্রই তার ডাকে সাড়া দেওয়া। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, “যখন কোনো পুরুষ তার স্ত্রীকে তার সঙ্গে দৈহিক মিলনের জন্য ডাকবে, তখনই যেন সে তার ডাকে সাড়া দেয়। এমনকি সে যদি ক্বাতবের পিঠেও থাকে। ” [যাওয়াইদুল বাযযার ২/১৮১ পৃ; সহীহুল জামে, হাদীস নং ৫৪৭] ‘ক্বাতব’ হচ্ছে, উঠের পিঠে রাখা গদি যা সওয়ারের সময় ব্যবহার করা হয়ে থাকে।
স্বামীরও কর্তব্য হবে, স্ত্রী রোগাক্রান্ত্র, গর্ভবতী কিংবা অন্য কোনো অসুবিধায় পতিত হলে তার অবস্থা বিবেচনা করা। এতে করে তাদের মধ্যে সৌহার্দ্য বজায় থাকবে এবং মনোমালিন্য সৃষ্টি হবে না।

সাকিবের ও মুস্তাফিজের জার্সি নম্বর যথাক্রমে ৭৫ ও ৯০ কেন? এর পিছনের গল্পটি জানলে অবাক হবেন!


ক্রিকেটের শুরু থেকেই ক্রিকেটারদের জার্সিতে নম্বরের প্রচলন ছিল নাা। এটি শুরু হয় ১৯৯৯ বিশ্বকাপের সময় থেকে। তখন প্রতিটি দলের অধিনায়কদের ১ নম্বর ও ২-১৫ পর্যন্ত হতো বাকি ক্রিকেটারদের জার্সি নম্বর।
প্রথম থেকেই এ পদ্ধতি থেকে একটু ব্যতিক্রম ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তৎকালীন অধিনায়ক হ্যান্সি ক্রোনিয়ের জার্সি নম্বর ছিল ৫। আর ১ নম্বর জার্সিটির মালিক ছিলেন কার্স্টেন।আর এখন তো ক্রিকেটাররা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী জার্সি
নম্বরের জন্য আবেদনও করেন টিম ম্যানেজম্যান্টের কাছে। অনেকে তাদের জার্সি নম্বরগুলো নিয়ে দুর্বলতাও রয়েছে। কেউ কেউ আবার নিজের জন্য লাকি নম্বরটিকেই জার্সি নম্বর হিসেবে পেতে চান।
বাংলাদেশের বিশ্বখ্যাত অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ৭৫ নম্বর জার্সি পরেন। এর পেছনে কিন্তু একটি রহস্য রয়েছে। তিনি যখন বিকেএসপিএত ছিলেন তখন তার ক্যাডেট নম্বর ছিল ‘ক্রিকেট ২৭৫’। সেই থেকেই তার জার্সি নম্বর ৭৫। তামিম ইকবাল এখন ২৮ নম্বর জার্সি পরে খেলেন। তবে তিনি প্রথম দিকে ২৯ নম্বর জার্সি পরতেন। আর ২৯ সংখ্যাটি ছিল তার জন্মদিনের তারিখ।
বাংলাদেশের তরুণ তারকা মুস্তাফিজুর রহমান ৯০ নম্বর জার্সি পরেন জাতীয় দলের হয়ে। এমনকি তিনি যখন আইপিএলে খেলেছেন তখনও তার একই জার্সি নম্বর ছিল। ইংল্যান্ডের কাউন্টি লিগেও তার জন্য একই নম্বরের জার্সি করা হয়েছে। এব্যাপারে তিনি নিজে কিছু না বললেও বোঝাই যাচ্ছে এটা যে কারণেই হোক তার প্রিয় একটি সংখ্যা।

ভারতের বিমানে কেন ‘ভিটি’ লেখা থাকে? কারণ শুনলে চটে লাল হয়ে যাবেন


শুরুতেই বলে দেওয়া যাক, ইংরেজরা এই দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছে। কিন্তু আমরা সম্ভবত এখনও হ্যাংওভার কাটিয়ে উঠতে পারিনি। VT-র পুরো কথাটি হল ‘‘ভাইসরয় টেরিটরি।’’
অসামরিক বিমান পরিবহণের ক্ষেত্রে দুনিয়াজুড়ে যে নিয়ম রয়েছে, তাতে প্রতিটি বিমানকেই কোনও না কোনও দেশের অধীনে নাম নথিভুক্ত করাতে হবে। এতে একটি রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং দু’টি বর্ণের একটি কোড দেওয়া হয়, যে কোড আদতে দেশের নামানুসারে করা হয়ে থাকে। এর পরে থাকে আরও তিনটি বর্ণ। এই বর্ণগুলি বিমানটি যে সংস্থার, তারা পছন্দ করে নিতে পারে।
ভারতের বিমানগুলি যখন এই বিশ্বব্যাপী নিয়মের আওতাভুক্ত হয়েছিল, তখনও এ দেশের আকাশে ইউনিয়ন জ্যাক ওড়ে। সে কারণেই VT বরাদ্দ হয়েছিল ভারতীয় বিমানগুলির জন্য।
তবে ভারত সরকার দীর্ঘদিন ধরে এই কোড পাল্টানোর চেষ্টা করে চলেছে। IN (ইন্ডিয়া), BH (ভারত) বা HI (হিন্দুস্তান) চাওয়া হয়েছে কোড হিসেবে। কিন্তু আন্তর্জাতিক অসামরিক বিমান পরিবহণ সংস্থার কাছে এই কোডগুলির কোনওটিই মজুত নেই। তবে পাকিস্তান কিন্তু বহু দিন আগেই কোড পাল্টে ফেলেছে।

Kategori

Kategori